Google+ Followers

Google+ Followers

Google+ Followers

রবিবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৫

Cure from ekzema

হোমিওপ্যাথিক কেসস্টাডি
ব্রিবতকর একজিমা থেকে হোমিওপ্যাথিক আরোগ্য
মূল-ডা. জিরি শেওভস্কি
ভাষান্তর-গাজী সাইফুল ইসলাম
১৯৯০ সালে একটি ম্যাগাজিন হোমিওপ্যাথির ওপর আমার একটি আর্টিক্যাল ছাপেআমাদের চেকোশ্লাভাকিয়ার মানুষ তখনো এ চিকিৎসা ব্যবস্থা সম্পর্কে অজ্ঞ ছিলপত্রিকাটির সম্পাদক প্রথমে আমাকে তার দুবছরের কন্যার একজিমা (কাউর) ভাল করার দায়িত্ব দিলেনপ্রচলিত কোনো চিকিৎসা তাকে সুস্থ করতে পারেনিতারা এ নিয় খুব দুশ্চিন্তায় ছিলেনকিন্তু আমি তাকে খুব সহজে সুস্থ করে তুলিএরপর রোগটির পুনরাক্রমণ না হওয়ায় সম্পাদকের মনে নতুন চিকিৎসা ব্যবস্থাটি সম্পর্কে বেশ আস্থার সৃষ্টি হয়
এবার তিনি তার এক আত্মীয় শিশুচিকিৎসকের পাঁচ বছরের মেয়ে লেনকার চিকিৎসার ভার আমার ওপর দিলেনদক্ষিণের ছোট্ট শহর বোহেমিয়ায় তারা থাকেওই মেয়েটিও তার এক বছর বয়স থেকে কঠিন এক ধরনের একজিমায় ভোগছিল
পিতামাতা যতক্ষণ কথা বললেন মেয়েটি চুপ করে রইলতারা জানালেন, তারা তাকে সুস্থ করে তোলার জন্য সম্ভব সবধরনের চিকিৎসা দিয়েছেনকিন্তু প্রচলিত চিকিৎসা তাকে সুস্থ করে তুলতে পারেনিতারা জানালেন, রোগটি শুধু মেয়েটিকে নয়-আমাদেরও নিঃশেষ করে দিয়েছেতারা বললেন, প্রথমে তার উরুতে কিছু ফসকুরি জন্মেছিলএরপর ওই ফুসকুরিগুলো ছড়াতে শুরু করেবিশেষ করে তার মাংসপেশীর ভাঁজে ভাঁজেগোসলের পর শুরু হয় চুলকানিযখন সে চুলকাতে শুরু করে রেশগুলো ত্বকের ওপর ফোঁড়ার আকার নেয়রাতে সকল উপসর্গের অবনতি ঘটেশরীর অতিরিক্ত আঁচড়ানো পর সে কাঁদতে থাকেঅবস্থার আরও অবনতি ঘটে পরদিন দুপুরের ঘুমের সময়, তখন সে গরমের কারণে সকল কাপড় ছুঁড়ে ফেলেগ্রীষ্মকালে, সূর্যের তাপে, ঘরের গরমে, K¤^‡ji নিচে তার অবস্থা খারাপতর হয়আর শারীরিক লক্ষণ দিন দিন বৃদ্ধি পেতে থাকেপ্রচণ্ডতা বেড়ে যায়, বিশেষ করে, যখন সে রেগে যায়, কিছু চেয়ে না পায়। (রাগ, দুঃখ, শোক বা ক্রন্দনের সময়-রোগ লক্ষণ বাড়ে-ইগ্নে.)এ ছাড়াও তার ঠাণ্ডা লেগেই থাকেপ্রায়শই কফ ঝরেদীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা চলায় এখন তা হাঁপানির রূপ নিয়েছে
মেয়েটির পিতা এটা জানতেন যে, শিশুদের ক্ষেত্রে একজিমা অনেক সময় হাঁপানির কারণ হয়কখনো তা  পূর্ণ ব্রোঙ্কাল হাঁপানিতেও রূপ নয়এটা ছিল তাদের দুশ্চিন্তার অন্য আরেকটি কারণএসব কারণে মেয়েটির ভবিষ্যৎ নিয়েই তারা উদ্বিগ্ন ছিলেনসর্বোপরি হাঁপানি তার মৃত্যুরও কারণ হতে পারেঅনুসন্ধান থেকে আরও জানা যায়, স্কুলের সময়ে মেয়েটির আচরণ বেশ ¯^vfvweK থাকে, সামাজিকও সেমিষ্টি খেতে পছন্দ করে মুরগি ছাড়া সব মাংসই তার অপছন্দসামান্য আহার করে কিন্তু মাখন তার প্রিয়প্রচুর পানীয় পান করে কিন্তু সবই কোল্ড ড্রিঙ্কসগরম খাবার বা পানীয় সে খেতেই চায় নাকিছুটা লাজুক প্রকৃতির, যত বয়স হচ্ছে ভীরুতা বাড়ছে
Jiri Cehovsky
সালফার-২০০ হোমিওপ্যাথিক ওষুধটি পিলের সঙ্গে মিশিয়ে একটি বিশেষ নিয়মে খাওয়ানোর পরামর্শ  দেওয়া হলোশর্ত দেয়া হলো, খাওয়ার এক ঘণ্টা আগে অথবা পরে ওষুধটি খেতেকফি, কাঁচা রসুন ও পিঁয়াজ না খাওয়াতেএছাড়া অন্য সকল ওষুধ বন্ধ করে দিতেএসব কঠিন নিয়ম শুনে তারা wØavwš^Z হয়ে পড়েন কিন্তু তবু মানতে রাজি হলেনজানান হল, একজিমা একটি ক্রনিক চর্ম রোগভাল হতে সময় লাগবেঅধৈর্য হলে চলবে নাতার wØavwš^Z অবস্থা দেখে, মনোবৈজ্ঞানিক সাপোর্ট দেয়ার জন্য বলা হলো, যদি কখনো খুব বেড়ে যায় মলমটা লাগাবেনকিন্তু একবারের বেশি নাতারা ওষুধ নিয়ে চলে গেলেননিজে আমি রোগটা ভাল করতে পারব বলে আস্থাশীল ছিলামকিন্তু সন্দেহমুক্ত হতে পারছিলাম না
তিনমাস তাদের কোনো সংবাদ পাওয়া গেল নাএকদিন মধ্যরাতে হঠাৎ ফোন এলকিছুটা অতিশয়োক্তির মতো শোনা গেল মেয়েটির শিশুচিকিৎসক বাবার Kɯ^i| দক্ষিণ বোহেমিয়া থেকে তিনি বলছেন: আপনি যা যা বলেছেন, সব করেছিতিন মাস ধরে আমরা তাকে কোনো ওষুধ দিইনিতার বেদনা, চুলকানি অনেকাংশে চলে গেছেএখন তার ভাল ঘুম হয়, কিন্তু একজিমার তেমন কোনো পরিবর্তন  নেইগত দুদিন আগেও তার খুবই কষ্টকর কাশি হয়েছে কিন্তু সত্য হলো হাঁপানির লক্ষণটা নেইভয়ানক সর্দিটা অবশ্য আছে, সবসময় কফ ঝরেকফ সিরাপটা কি আবার দেব?
‘‘না, কোনো কিছু নাঠিক দুদিন পর ফোন দেবেন’’
কিন্তু আবার কয়েকমাস কেটে গেলতাদের কোনো খবর নেইএরপর একদিন, কোনো পূর্বজানান দেয়া ছাড়াই তারা আমার প্ল্যাটে এসে হাজির হলেনতারা খুব খুশি, আনন্দোৎফুল্ল‘‘লেনকার অনেক সমস্যা দূর হয়ে গেছেএকজিমা আছে কিন্তু আগের সেই তীব্রতা নেইঅন্যান্য জটিলতাও কম’’ ফোন করার দিন থেকে সর্দিটাও চলে গিয়েছিল এবং এরপর ধীরে ধীরে একজিমার লক্ষণগুলো দূর হয়ে যায়প্রথমে মুখ থেকে পরে শরীর থেকেসবশেষে পা থেকেমেয়েটির ¯^v‡¯’¨i উন্নতি হয়েছে, গত ছমাস আর কোনা ওষুধ (ক্যামিক্যাল) তার পেটে পড়েনিএমন কিছু মুহূর্ত আসে-যখন মানুষ ভাবে, যা কিছু ঘটেছে তারও প্রয়োজন ছিল
বছরখানেক পরে তৃতীয়বারের মতো মেয়েটির বাবা আমার সঙ্গে দেখা করতে আসেনলেনকা তখনো সুস্থকিন্তু মাঝে মধ্যে একজিমা ধরনের কিছু ফুসকুরি তার চোখের ভ্রু ভাঁজে দেখা দেয়এবার পূর্বোক্ত ওষুটির পরবর্তী উচ্চ শক্তি তাকে প্রদান করা হলোমাত্র এক ডোজএকটি মাত্র চিনির বড়ি
লেনকা ¯^v¯’¨eZx সুন্দরী মেয়ে হিসেবে তার স্কুলের পড়াশোনা চালাতে লাগলতার পিতার পাঠানো চিঠি অনুযায়ী, লেনকার শরীরে এখন আর একজিমার কোনো লক্ষণ দেখা যায় নাওটা ছিল অন্য আর সব চিকিৎসা থেকে আলাদা জাদুকরি এক আরোগ্যএর বেশি কিছু নাহোমিওপ্যাথিতে এমনটি সবসময়ই ঘটে থাকে-যখন হোমিওপ্যাথির নিয়ম মেনে চিকিৎসা দেয়া হয়একজিমার আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ ওষুধ যেমন গ্রাফাইটিস, পেট্রোলিয়াম, সিপিয়া, টেলুরিয়াম (দাদ) লক্ষণানুযায়ী রোগীতে প্রযুক্ত হয়ে রোগীকে আরোগ্য দান করতে পারে


[জিরি চেহোভস্কি (Jiri Cehovsky) বিশ্বখ্যাত ক্ল্যাসিক্যাল হোমিওপ্যাথজন্ম ১৯৪৭ সালে চেকোশ্লাভাকিয়ায়২৬ বছর ধরে তিনি হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা করছেনলিখেছেন  বহু মূল্যবান প্রবন্ধ ও বই২০০৩ সাল পর্যন্ত তিনি ছিলেন  প্রাগ হোমিওপ্যাথি কাডেমির পরিচালকটোপ্যাথি নামে তিনি গড়ে তুলেছেন একটি বিশেষ হোমিওপ্যাথিক  চিকিৎসা পদ্ধতি।]

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন